a
Sorry, no posts matched your criteria.
My Bookmarks
  • No bookmark found
Image Alt
 • চুলের যত্ন  • দীর্ঘ এবং ঝলমলে চুলের জন্য নারকেল-অ্যালোভেরার পারফেক্ট মিশ্রণ
Coconut and Aloe Vera Blend for hair

দীর্ঘ এবং ঝলমলে চুলের জন্য নারকেল-অ্যালোভেরার পারফেক্ট মিশ্রণ

Bookmark CFL(0)
  • নারিকেল ও অ্যালোভেরা একসাথে মিশিয়ে চুল পরিচর্যার জন্য নিয়মিত ব্যবহারে চুল হয়ে ওঠে নরম, কোমল ও সিল্কি। 
  • কোঁকড়া চুলের জন্য অ্যালোভেরা খুব কার্যকর কারণ এটি একদমই লাইটওয়েট।
  • অ্যালোভেরা ও নারিকেলের মাস্ক মাথায় সারা রাতও রেখে ব্যবহার করা যেতে পারে। 

 

চুল পড়ে যাওয়া সমস্যায় ভোগেননি এমন কাউকে পাওয়া ভার। পাশাপাশি চুলের রুক্ষ হয়ে যাওয়া, আগা ফেটে যাওয়া, এলার্জি, খুশকি এসব সমস্যা তো আছেই। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি বা বাজারের কেমিক্যাল জাতীয় পণ্য ব্যবহারেও কিন্তু চুল রুক্ষ ও নষ্ট হয়ে যায়। খসখসে ও প্রাণহীন রুক্ষ চুলের কারণে মন খারাপ হয়ে যাওয়াই স্বাভাবিক। 

 

চুলের রুক্ষতা দূর করে প্রাণ ফিরিয়ে আনতে তাই রূপচর্চার পাশাপাশি চাই নিয়মিত চুলের যত্ন। তাই প্রাকৃতিকভাবে নিয়মিত চুলের যত্ন হতে পারে চুলকে ঝলমলে ও প্রাণবন্ত রাখার অন্যতম উপায়।  

 

চুলের যত্নে নারিকেল ও অ্যালোভেরা পুষ্টিগুণে অনন্য দুটি প্রাকৃতিক উপাদান। চুল পড়া বন্ধ থেকে শুরু করে মাথার ত্বকের খুশকি, এলার্জি, রুক্ষতা ইত্যাদি দূর করতে এই দুই উপাদান একসাথে কার্যকর ফলাফল দেয়। চুলের যত্নে অ্যালোভেরার জুড়ি নেই।  নারিকেল ও  অ্যালোভেরা একসাথে মিশিয়ে চুলে নিয়মিত ব্যবহার করলে যেসব উপকারিতা আপনি পাবেন সেগুলো হল:

 

চুলকে নরম ও সিল্কি করে তোলে- 

 

নারিকেল ও অ্যালোভেরা একসাথে মিশিয়ে চুল পরিচর্যার জন্য নিয়মিত ব্যবহারে চুল হয়ে ওঠে নরম, কোমল ও সিল্কি। নারিকেল ও অ্যালোভেরাতে যে প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদানগুলি রয়েছে তা আপনার চুলের গভীরে পৌঁছে চুলকে গোড়া থেকে শক্ত ও মজবুত করে তোলে। অ্যালোভেরাতে রয়েছে প্রোটিন, প্রোটিওলাইটিক এনজাইম, ভিটামিন ও মিনারেল যা চুলের ফলিকলকে মজবুত করে এবং চুলের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। ফলে চুলের ঝলমলে ভাবও ফিরে আসে। 

 

চুলকে খর পানি থেকে সুরক্ষিত রাখে- 

 

অনেক সময় পানিতে লবণের পরিমাণ বেড়ে যায়। এই পানি চুলের জন্য ক্ষতিকর। লবণাক্ত ও খর পানি চুলে ব্যবহার করলে চুলের আগা ফেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। নারিকেল ও অ্যালোভেরার মিশ্রণ চুলকে ভিতর থেকে সুরক্ষা দেয় এবং চুলকে করে তোলে সিল্কি। নারিকেল ও অ্যালোভেরার মিশ্রণ চুলে মাসাজ করলে আলাদা একটি লেয়ার তৈরি হয় যা চুলকে বিভিন্ন ক্ষতিকর পদার্থ থেকে সুরক্ষা দেয়। 

 

এই মিশ্রণটি চুলকে একদম ভিতর থেকেই হাইড্রেটেড রাখে। পাশাপাশি চুলের পিএইচ ব্যালেন্সও ধরে রাখে। অ্যালোভেরাতে রয়েছে এন্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য, যা মাথার ত্বকের চুলকানি বা শুষ্কভাব দূর করতে দারুণ কার্যকর। এই মিশ্রণ ব্যবহারে চুলের খুশকিও দূর হয়। 

 

চুলের ক্ষয়ক্ষতি গভীর থেকে মেরামত করে-

 

অ্যালোভেরা ও নারিকেল দুটো উপাদানেই রয়েছে কন্ডিশনিং বৈশিষ্ট্য। অ্যালোভেরাতে রয়েছে এনজাইম যা মাথার ত্বকের মৃত কোষ দূর করতে সাহায্য করে। আর এর সাথে নারিকেল যোগ করে মিশ্রণ বানিয়ে ব্যবহার করলে চুলের সতেজ ভাব দ্রুত ফিরে আসে। 

 

চুলের বৃদ্ধি তরান্বিত করে- 

 

অ্যালোভেরা ও নারিকেলের মিশ্রণ চুলের বৃদ্ধির জন্য দারুণ উপকারী। এটি চুল পড়া রোধ করে চুলের ঘনত্ব বাড়াতে সাহায্য করে। 

নারিকেল ও অ্যালোভেরা হেয়ার মাস্ক: 

 

চুলের যত্নে নারিকেল ও অ্যালোভেরার গুণাগুণ বর্ণনার বাইরে। চুলের শুষ্কতা দূর করতে ও বৃদ্ধি বাড়াতে নারিকেল ও অ্যালোভেরা একসাথে মিশিয়ে হেয়ার মাস্ক হিসেবে ব্যবহার করলে দারুণ ফল পাওয়া যায়। বিশেষ করে কোঁকড়া চুলের জন্য অ্যালোভেরা খুব কার্যকর কারণ এটি একদমই লাইটওয়েট।  এই হেয়ার মাস্ক মিনারেল, ভিটামিন, এমিনো এসিড, লরিক এসিড সহ নানারকম পুষ্টি উপাদানে ভরপুর যা চুলের শুষ্কতা ও খুশকি দূর করতে সহায়ক। অনেক লম্বা সময় ধরেই অ্যালোভেরা চুল পড়া রোধে ব্যবহার হয়ে আসছে। এই হেয়ার মাস্ক চুল পড়া রোধ করে চুলের বৃদ্ধি তরান্বিত করে এবং চুল হয়ে ওঠে কোমল ও মসৃণ। 

 

নারিকেল ও অ্যালোভেরা হেয়ার মাস্ক তৈরি করবেন যেভাবে: 

 

উপাদান: 

 

  • ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল
  • ১ টেবিল চামচ ভার্জিন কোকোনাট অয়েল 

 

নির্দেশনা: 

 

  • একটি পাত্রে পরিমাণমতো অ্যালোভেরা জেল ও নারিকেল তেল নিন। 
  • দুটো উপাদান ভালোভাবে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। 
  • হেয়ার মাস্ক চুলে লাগানোর আগে নিজের শরীর একটি তোয়ালে বা পুরোনো কাপড় দিয়ে ঢেকে নিন। 
  • চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত আঙুলের সাহায্যে মাস্ক লাগিয়ে নিন। লম্বা চুল হলে চুল কয়েকভাগে ভাগ করে নিন, এতে মাস্ক লাগাতে সুবিধা হবে। 
  • চুলের মাঝ বরারবর থেকে আগা পর্যন্ত মাস্ক লাগানোর পর গোড়ায় গোড়ায় মাসাজ করুন। লাগানো হয়ে গেলে বড় দাঁতের চিরুণি দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন, এতে করে পুরো মাথায় মাস্ক সমানভাবে লাগানো হবে। 
  • একটি শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে মাথা ঢেকে নিন। 
  • ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। আপনি যদি আরেকটু বেশি কন্ডিশনিং করতে চান, তাহলে আরো ১ ঘন্টা মাস্কটি মাথায় রেখে তারপর ধুয়ে নিতে পারেন। 

 

নারিকেল তেলে রয়েছে লরিক এসিড যা যা চুলের গভীরে পৌঁছে চুলকে পুষ্টি যোগায়। অ্যালোভেরা জেল বা রস দুটোই কিন্তু চুলের জন্য উপকারি। সেই সাথে অ্যালোভেরাতে রয়েছে প্রোটিওলাইটিক এনজাইম যা চুলের গভীরে পৌঁছে ক্ষয়ক্ষতি রোধ করে। তাই এই দুটি উপাদান একসাথে হেয়ার মাস্ক বানিয়ে নিয়মিত চুলে ব্যবহার করলে চুলের বৃদ্ধি বাড়ার পাশাপাশি চুল হয়ে ওঠে ঝলমলে ও উজ্জ্বল। এই মাস্কটি চাইলে মাথায় সারা রাতও রেখে ব্যবহার করা যেতে পারে। 

 

   

চুলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে অ্যালোভেরা ও নারিকেল যেভাবে সাহায্য করে: 

 

চুলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে ও চুলকে প্রাকৃতিকভাবে সুন্দর ও ঝলমলে করতে অ্যালোভেরা ও নারিকেলের তৈরি হেয়ার মাস্ক খুব কার্যকর ফলাফল দেয়। সেগুলো হল: 

 

  • এই হেয়ার মাস্কটি চুল পড়া রোধে সাহায্য করে। যেহেতু অ্যালোভেরা ও নারিকেল দুটো উপাদানই প্রোটিন সমৃদ্ধ তাই চুল পড়া কমে গিয়ে চুলের বৃদ্ধি বেড়ে যায়।  চুল ঘন, লম্বা ও মজবুত হতেও এই মাস্ক সাহায্য করে।  
  • অ্যালোভেরা ও নারিকেলের হেয়ার মাস্ক নিয়মিত ব্যবহারে খুশকি দূর হয়। 
  • চুলের শুষ্কতার সমস্যায় অনেক ভোগেন। অ্যালোভেরা ও নারিকেলে রয়েছে এন্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য যা মাথার ত্বকে ফাঙ্গাস সংক্রমণ রোধ করে।  ফলে চুলকানি বা এলার্জি থেকে মাথার ত্বক রক্ষা পায় এবং চুলের ফলিকলসও মজবুত থাকে। 
  • নারিকেল ও অ্যালোভেরা এন্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। এই হেয়ার মাস্ক মাথার ত্বকের মৃত কোষ দূর করে চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। 
  • নারিকেলে রয়েছে এন্টিমাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য। তাই এই হেয়ার মাস্ক মাথার ত্বকে ঈস্ট সংক্রমণ রোধ করে। 

 

সুন্দর ও ঝলমলে, লম্বা, ঘন চুল সবারই প্রত্যাশিত। তাই চুলের যত্নের ব্যাপারে একটু সচেতন থাকলেই চুলের নানারকম সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি মেলে। অ্যালোভেরা ও নারিকেলের তৈরি হেয়ার মাস্ক চুলের নানারকম সমস্যা তো দূর করেই, সেই সাথে চুলকে গভীর থেকে পুষ্টি যোগায়। ফলে চুলের বৃদ্ধি তরান্বিত হয় ও চুলের স্বাস্থ্য বজায় থাকে। 

 

নারিকেল ও অ্যালোভেরা চুলের বৃদ্ধি বাড়াতে কীভাবে সাহায্য করে? 

 

উত্তর: নারিকেল ও অ্যালোভেরায় যেসব প্রাকৃতিক পুষ্টিগুণ রয়েছে এগুলো চুল পড়া রোধ করে চুলের বৃদ্ধি বাড়াতে সাহায্য করে। 

 

অ্যালোভেরা ও নারিকেল তেল দিয়ে কীভাবে হেয়ার মাস্ক বানাতে পারি? 

 

উত্তর: পরিমাণ মত অ্যালোভেরা ও নারিকেল তেল একসাথে মিশিয়ে হেয়ার মাস্ক তৈরি করতে পারবেন। 

 

নারিকেল তেলের সাথে কী মিশিয়ে ব্যবহার করলে চুলের বৃদ্ধি বাড়বে? 

 

উত্তর: নারিকেল তেলের সাথে অ্যালোভেরা মিশিয়ে ব্যবহার করলে চুলের বৃদ্ধি বাড়বে। 

 

অ্যালোভেরার সাথে কী মিশিয়ে ব্যবহার করলে চুলের বৃদ্ধি বাড়বে? 

 

উত্তর: অ্যালোভেরার সাথে নারিকেল তেল মিশিয়ে ব্যবহার করলে চুলের বৃদ্ধি বাড়বে। 

 

অ্যালোভেরার সাথে কি নারিকেল তেল মেশানো যাবে? 

 

উত্তর: হ্যাঁ, অ্যালোভেরার সাথে নারিকেল তেল মেশানো যাবে। 

 

নারিকেল তেল কি চুলকে ঘন করে? 

 

উত্তর: হ্যাঁ, নারিকেল তেল চুলকে ঘন করে তোলে। 

 

 

 

Reference: 

https://tribune.com.pk/story/1980078/5-benefits-aloe-vera-coconut-oil-hair

https://www.healthline.com/health/aloe-vera-hair-mask#how-to-make

https://dontfollowthecrowd.net/aloe-vera-coconut-hair-mask/

https://haircaresquare.com/aloe-vera-and-coconut-oil-for-hair/

https://www.urbancompany.com/blog/beauty/aloe-vera-for-hair-growth-and-dandruff/

https://www.indiatvnews.com/lifestyle/beauty-hair-care-tips-switch-to-aloe-vera-and-coconut-oil-to-get-silky-strong-hair-522346#:~:text=A%20gentle%20massage%20with%20coconut,pH%20balance%20of%20your%20hair.&text=Aloe%20vera%20contains%20healing%20enzymes,skin%20cells%20on%20the%20scalp.

 

POST A COMMENT