a
Sorry, no posts matched your criteria.
My Bookmarks
  • No bookmark found
Image Alt
 • চুলের যত্ন  • বর্ষায় চুলের যত্নের পরিপূর্ণ গাইড

বর্ষায় চুলের যত্নের পরিপূর্ণ গাইড

Bookmark CFL(0)

ঠাণ্ডা বাতাস, ঝড়ের গর্জন এবং অবশ্যই মন্ত্রমুগ্ধ বৃষ্টিপাত – বর্ষার চেয়ে বেশি স্নিগ্ধ আর কি হতে পারে? আবহাওয়াটি আরও মনোমুগ্ধকর হতে পারে যদি আপনার হাতে থাকে গরম গরম কফির কাপ এবং স্ক্রিনে চলতে থাকে আপনার পছন্দসই নেটফ্লিক্স শো। এমন আবহাওয়াতে খানিকটা বৃষ্টিতে ভিজতে চাওয়ার ইচ্ছা হওয়াটাও স্বাভাবিক। কিন্তু তা  বুদ্ধিমানের কাজ হবে না।

না, মায়েদের শাসনসুলভ ভঙ্গিতে আমরা এটা বলতে চাচ্ছি না বৃষ্টিতে ভিজলে আপনার সর্দিজ্বর হবে। আমরা আপনার চুলের স্বাস্থ্যের জন্যও উদ্বিগ্ন কারণ বৃষ্টির জল রাসায়নিক এবং দূষণকারী উপাদানগুলোতে পূর্ণ। তাছাড়া, বাতাসে বেড়ে যাওয়া আর্দ্রতাও আপনার চুলের সৌন্দর্যের বিপরীতে কাজ করে। সুতরাং,আপনি বলতেই পারেন যে এ রোমান্টিক আবহাওয়া আপনার চুলের জন্য খুব ভাল নয়। 

তবে এর অর্থ কী এই যে এই আবহাওয়া উপভোগ না করে আপনার সর্বদা উদ্বিগ্ন থাকতে হবে? অবশ্যই না! বর্ষার সময় চুলের সঠিক যত্ন বজায় রাখার মাধ্যমে আপনি নিজের চুলকে আরও ঝলমলে করে তুলতে পারেন। সুতরাং, আপনি যদি জানতে চান কীভাবে সঠিকভাবে বর্ষায় চুলের যত্ন নিতে হয়, তবে সাথেই থাকুন।

 

বর্ষায় চুলের যত্নের পরামর্শঃ

১. চুলে নারকেল তেল লাগানো:

এই মৌসুমে নারিকেল তেল আপনার চুলের সেরা বন্ধু। চুলের যত্নে নারিকেল তেল ব্যবহারের বহুবিধ উপকারিতা রয়েছে। এটি আপনার চুলে পুষ্টি জোগায় এবং চুলের রুক্ষতা  কমায়। আপনি যে কোনও সময় নারিকেল তেল দিয়ে চুলে ম্যাসাজ করতে পারেন। তবে কিছু বিশেষ সুবিধার জন্য, সপ্তাহে এক বা দুবার নীচে প্রদত্ত কৌশলটি অনুসরণ করতে পারেন:

  • আপনার চুলের দৈর্ঘ্য এবং ঘনত্বের উপর ভিত্তি করে পরিমাণমতো নারিকেল তেল গরম করুন
  • আপনার মাথার ত্বকে এবং চুলে এটি আলতোভাবে ম্যাসাজ করুন
  • তোয়ালে গরম পানিতে ভিজিয়ে নিন এবং তা দিয়ে আপনার চুল মুড়িয়ে দিন
  • পাঁচ মিনিট রেখে দিন এবং তারপরে তোয়ালেটি আবার গরম পানিতে ভিজিয়ে নিন
  • সেরা ফলাফলের জন্য পদ্ধতিটি চার থেকে পাঁচবার পুনরাবৃত্তি করুন 

২. ডিম এবং মেয়োনেজ থেরাপি:

এটি পেশাদার হেয়ার এক্সপার্টদের দ্বারা ব্যবহৃত একটি জনপ্রিয় প্রোটিন ট্রিটমেন্ট। চুলে নারিকেল তেল লাগানোর পরে আপনি এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। অথবা, আপনি প্যাকটিতে কিছু নারিকেল তেলও যুক্ত করতে পারেন।

উপকরণ:

  • নারিকেল তেল
  • মেয়োনিজ
  • ডিম

 

পদ্ধতিঃ

  • একটি ডিম এবং এক চামচ মেয়োনিজ নিন
  • এগুলো ভালোভাবে মিশিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করুন
  • এতে এক চামচ নারকেল তেল দিন
  • আপনার চুলে মাস্কটি ভালোভাবে প্রয়োগ করুন
  • এক ঘন্টা রেখে দিন এবং তারপরে হালকা শ্যাম্পু দিয়ে আপনার চুল ধুয়ে ফেলুন

 

৩. প্রি-শ্যাম্পু পণ্য হিসাবে নারিকেল তেল ব্যবহার করুন:

কয়েক ধাপে চুলের যত্ন নেওয়ার সময় হয়ে উঠছে না? তাহলে গোসলের ১৫ মিনিট আগে চুলে নারিকেল তেল লাগিয়ে রাখুন। এটি আপনার চুলকে প্রিকন্ডিশন করতে সহায়তা করে। তেল আপনার চুলকে অতিরিক্ত পানি শোষণে বাধা দেয়। ফলস্বরূপ, আপনি ঈর্ষণীয় চুল অর্জন করবেন। সুতরাং,অবশ্যই আপনার বর্ষার চুলের যত্নের রুটিনে এ পদ্ধতিটি অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

 

৪. সপ্তাহে তিনবার চুল ধুয়ে নিন:

বর্ষায় আপনার চুল বেশী বেশী ময়লা হয়। জমে থাকা ময়লার আস্তর এড়াতে, বর্ষাকালে চুলের যত্ন নিতে সপ্তাহে কমপক্ষে তিনবার চুল শ্যাম্পু করা উচিত। ক্লেরিফায়িং শ্যাম্পু ব্যবহার করা হবে সর্বোত্তম এটি আপনার চুল পরিষ্কার এবং সিল্কি করে তুলে।

 

৫. সর্বদা কন্ডিশনার ব্যবহার করুন:

আপনাকে অবশ্যই শ্যাম্পুর সাথে ভাল একটি কন্ডিশনার  ব্যবহার করতে হবে। বাড়তি আর্দ্রতা আপনার চুল ভেঙে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ ফলস্বরূপ, আপনার নিস্তেজ এবং রুক্ষ দেখায়। একটি ভালো কন্ডিশনার ব্যবহার করে এই সমস্যাটি সমাধান করতে পারেন। এটি আপনার চুল ময়েসচারাইজ করে তাই, এমন কন্ডিশনার ব্যবহার করুন যাতে নারিকেল তেল রয়েছে।

 

৬. বৃষ্টিতে ভেজার পূর্বে নারিকেল তেল ব্যবহার করুনঃ

বৃষ্টির পানি আপনার চুলের জন্য ক্ষতিকারক হলেও, বৃষ্টিতে ভেজার লোভ সামলানো সবসময় সম্ভব না। এর সমাধানস্বরূপ, বৃষ্টিতে ভেজার আগে চুলে নারিকেল তেল প্রয়োগ করুন। এটি আপনার চুলকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করবে। এছাড়াও, বৃষ্টিতে ভেজার পর শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এটি বর্ষার চুলের যত্নের অন্যতম প্রয়োজনীয় পরামর্শ।

 

৭. গোসলের সময় স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি ব্যবহার করতে হবেঃ

আপনার মৌসুমী চুলের যত্নের রুটিন এই পরামর্শটি ব্যতীত অসম্পূর্ণ। কখনও গরম জল দিয়ে গোসল করবেন না। স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি ব্যবহার করুন কারণ এটি আপনার চুলের জন্য উপকারী হবে। ঠাণ্ডা পানি দিয়েও গোসল করতে পারেন। তবে অবশ্যই গরম পানি এড়িয়ে চলুন কেননা তা আপনার চুলকে ফ্রিজি করে তুলবে।

 

৮. প্রশস্ত দাঁতযুক্ত চিরুনি ব্যবহার করুন:

বর্ষায় আপনার চুলের যত্নের জন্য প্রশস্তদাঁতযুক্ত চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ানো দরকার। এটি অনেকগুলি চুল পড়া কমিয়ে সহজেই আপনার চুলের জট ছাড়াতে সাহায্য করে। তাছাড়াও, এটি সমানভাবে আপনার মাথার  ত্বকে প্রাকৃতিক তেল বিতরণ করে। তবে চুল ভেজা অবস্থায় আঁচড়াবেন না। ভেজা চুল সবচেয়ে দুর্বল এবং ক্ষতির ঝুঁকিতে  থাকে।

 

৯. ডিপ কন্ডিশনিংঃ

সপ্তাহে কমপক্ষে একবার চুল ডিপ কন্ডিশন করা উচিত। এটি চুলের যত্নের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শগুলোর মধ্যে একটি। বর্ষাকালে বাড়িতে আপনার সাপ্তাহিক চুলের যত্নের রুটিনে এটি অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। সেজন্য আপনি ভালো কোন ব্র্যান্ডের অথবা ঘরে তৈরি  ডিপ কন্ডিশনার ব্যবহার করতে পারেন।

উপকরণ:

  • ডিম
  • নারিকেল তেল বা ক্যাস্টর অয়েল
  • লেবুর রস
  • গ্লিসারিন

 পদ্ধতি:

  • একটি ডিম, এক চামচ ক্যাস্টর অয়েল বা নারকেল তেল, লেবুর রস এবং এক চামচ গ্লিসারিন নিন
  • যতক্ষণ না তারা ঠিকমতো মিশ্রিত হয় ততক্ষণ ভালো করে নাড়ুন
  • মিশ্রণটি আপনার মাথার ত্বকে এবং চুলে ভাল করে লাগিয়ে নিন 
  • শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে আপনার মাথার চুল মুড়িয়ে নিন 
  • চুল ধুয়ে ফেলার আগে মিশ্রণটি এক ঘন্টা মাথায় রাখুন 

 

১০. স্বাস্থ্যকর খাবার খান:

আপনি যদি আপনার স্বাস্থ্যের যত্ন না নেন তবে আপনি সুন্দর চুল আশা করতে পারবেন না। পরিমিতভাবে না খাওয়াও চুল পড়ার কারন হতে পারে ।  সুতরাং,বর্ষায় চুলের যত্নের একটি অংশ হিসেবে খাবারের তালিকায় মাছ, আখরোট, ডিম, সবুজ শাকসবজি ইত্যাদি খাবার অন্তরভুক্ত করুন

 

সচরাচর জিজ্ঞাস্যঃ

১. বর্ষায় চুলের যত্নের ঘরোয়া উপায় কী?

বর্ষার সময় আপনার চুলের অতিরিক্ত যত্ন নেওয়া উচিত। নিয়মিত আপনার চুলে নারিকেল তেল লাগান। নারিকেল তেল, লেবু, গ্লিসারিন এবং একটি ডিম ব্যবহার করে সপ্তাহে একবার আপনার চুল ডিপ কন্ডিশন করুন। এটি বর্ষাকালীন চুলের যত্নের অন্যতম পন্থা।

২. বৃষ্টি কি চুলের জন্য খারাপ?

হ্যাঁ, বৃষ্টির জল চুলের জন্য খারাপ কারণ এতে রাসায়নিক এবং দূষিত উপাদান রয়েছে।

৩. আমাদের কি বর্ষায় চুলে তেল দেওয়া উচিত?

হ্যাঁ, বর্ষায় আপনার চুলে তেল দেওয়া উচিত। বর্ষাকালে চুলের যত্ন তেল ব্যতীত অসম্পূর্ণ।

৪. বর্ষায় চুল কেন ফ্রিজি হয়ে যায়?

বাতাসের অতিরিক্ত আর্দ্রতা আপনার চুলকে বর্ষায় ফ্রিজি করে তুলে। এজন্য আপনাকে অবশ্যই বর্ষায় চুলের বিশেষ যত্ন নিতে হবে।

 

তথ্যসূত্রঃ

POST A COMMENT