a
Sorry, no posts matched your criteria.
My Bookmarks
  • No bookmark found
Image Alt
 • ত্বকের যত্ন  • পহেলা ফাল্গুনে ত্বকের যত্নের সেরা রুটিন
skincare routine for pohela falgun

পহেলা ফাল্গুনে ত্বকের যত্নের সেরা রুটিন

Bookmark CFL(0)
  • প্রতিদিন ত্বকের যত্ন নেয়া একটি স্বাস্থ্যকর অভ্যাস যেটি সবার ছোটবেলা থেকেই  শুরু করা উচিত।
  • সবসময় ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।
  • ত্বক ভেতর থেকে উজ্জ্বল করতে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন।
  • ত্বকের মৃত চামড়াগুলো ঝরাতে সপ্তাহে দুই থেকে তিন বার এক্সফোলিয়েট করুন।

 

প্রকৃতি যখন ঋতুরাজ বসন্তকে বরণ করে নেবার প্রস্তুতি নিচ্ছে মনে তখন গুনগুন করে বাজে “বসন্ত এসে গেছে”। 

আমাদের দেশে পহেলা ফাল্গুন- বসন্তের প্রথম দিন  বহু-প্রতীক্ষিত এক উৎসব। এই দিনে বেশিরভাগ মানুষ যেখানেই যাক না কেন- হোক সেটা  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার বকুলতলায়, নানান মেলায়, রেস্তোঁরায় অথবা যার যার কর্মক্ষেত্রে, মানুষের পরনে থাকে রং-বেরঙের  জামা-কাপড়। আপনি যেখানেই যান না কেন,  প্রাণের উচ্ছাসে ভরপুর স্বর্গীয় এই বসন্ত আপনাকে মন্ত্রমুগ্ধ করবে নিশ্চিতভাবেই। 

কিন্তু আপনার ত্বক কি এই উৎসবের জন্য তৈরি? যদি উত্তর হয় না, তবে চিন্তার কিছু নেই, হাতে আছে বেশ খানিকটা সময়। তাই যদি ত্বক থেকে ঝরিয়ে ফেলতে চান শীতের রুক্ষতা, অনুসরণ করুন এই সহজ কতগুলো ত্বকের যত্ন নেবার উপায়গুলো। 

 

পহেলা ফাল্গুনের জন্য ত্বকের যত্ন

 

১.রুটিন অনুসরণ করুন- আপনাকে আজ থেকেই আপনার ত্বকের যত্নে একটি নির্দিষ্ট রুটিন অনুসরণ করতে হবে। শুধুমাত্র একদিনের ব্যবহারে আপনি কোনো পণ্য থেকে আশানুরূপ ফল পাবেন না। তাই আপনার ত্বকের ধরন অনুযায়ী দিন এবং রাতের ত্বকের যত্নের রুটিন করে সেটি নিয়ম করে অনুসরণ করবেন। 

 

২. নিয়মিত সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন- ঋতু বা আবহাওয়া যেমনই থাক না কেন, আপনার সবসময় সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত। বাইরে বের হবার ৩০ মিনিট আগে আপনার মুখে, ঘাড়ে এবং হাতে সানস্ক্রিন মাখুন। খেয়াল রাখবেন আপনার সানস্ক্রিন যেন এস পি এফ৩০ (সান প্রটেকশন ফ্যাক্টর৩০) এর নিচে না যায়। যদি সম্ভব হয়, প্রতি দুই ঘণ্টা পরপর সানস্ক্রিন পুনরায় দিবেন। যদি আপনার সানস্ক্রিন পানি-প্রতিরোধক হয়, তবে সেটা আরো ভালো।  

 

৩.সপ্তাহে দুইবার এক্সফোলিয়েট করুন- আপনার দৈনন্দিন ত্বকের যত্নের রুটিনে এক্সফোলিয়েশন হয়তো আছে বা নেই। কিন্তু ত্বকের মৃত চামড়া ঝরিয়ে ফেলার জন্য এক্সফোলিয়েশন এর থেকে ভালো উপায় আর নেই। এটি আপনার ত্বকের নতুন আবরণ উন্মোচন করে আপনার ত্বক করবে আরো উজ্জ্বল।

তবু অতিরিক্ত এক্সফোলিয়েশন করে ফেলবেন না। যাদের শুষ্ক ত্বক তাদের সপ্তাহে এক থেকে দুই বারের বেশি এক্সফোলিয়েট করা উচিত নয়। আবার, আপনার ত্বক যদি তৈলাক্ত বা ব্রণ-প্রবণ হয় তবে, এক্সফোলিয়েশন সপ্তাহে দুই থেকে তিনবারের মাঝে সীমাবদ্ধ রাখুন।

 

৪. ত্বক ময়েশ্চারাইজ করুন-  কোমল ত্বকের জন্য ময়েশ্চারাইজিং ত্বকের যত্নের রুটিনে অন্যতম গুরুত্বপুর্ন এক ধাপ। যদি আপনার তৈলাক্ত ত্বক ও থাকে তবুও একটি ময়েশ্চারাইজার আপনার ব্যবহার করতেই হবে। ত্বক পরিষ্কারের পর যদি এই ধাপটি বাদ যায়, তবে ময়েশ্চার এর স্বল্পতায় আপনার ত্বক অতিরিক্ত তেল নির্গমন করে। যে কারণে আপনার ত্বক তেলচিটচিটে দেখা যায়। 

যদি আপনার শুষ্ক ত্বক হয় তবে ঘন ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করুন। নারিকেল তেল এর ভাল একটি বিকল্প হতে পারে। অপরদিকে যাদের তৈলাক্ত অথবা সংবেদনশীল ত্বক, তারা হালকা ধরনের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন। যদি আপনার ত্বক শুষ্ক এবং তৈলাক্ত দুটিই একসাথে হয়, তবে আপনার ময়েশ্চারাইজারে তেল-মুক্তকারী এবং ম্যাটিফাইং, দুই ধরনের উপাদানই আছে কিনা নিশ্চিত করুন।  

 

৫. ঘরোয়া ফেস মাস্ক-  এটা কোনো গোপনীয় ব্যাপার না যে, ঘরোয়া জিনিসপত্র দিয়েই দীপ্তিময় ত্বক পাওয়া যেতে পারে। তাই পহেলা ফালগুনে নিটোল ত্বকের জন্য ব্যবহার করে ফেলুন ঘরে তৈরি করা ফেস মাস্ক, সপ্তাহে ৩ থেকে ৪ বার। আপনি কফি-কোকো ডিটক্সিফায়ার ব্যবহার করতে পারেন, গুঁড়ো দুধের মাস্ক,পেঁপে এন্টি-এক্সিডেন্ট মাস্ক এমন আরো অনেক মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন প্রাকৃতিক উপায়ে ত্বকের যত্নে। 

 

৬.প্রচুর পানি পান করুন- নিজেকে ডিটক্সিফাই করুন প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে পানি পানের মাধ্যমে। এটি আপনার শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করে এবং ভেতর থেকে ত্বক উজ্জ্বল করে। মনে রাখবেন, যদি আপনি শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্যের ঠিকমত যত্ন না নেন, তবে আপনার ত্বকের যত্নের রুটিন কোনো ফল দিবে না। 

 

৭.শোবার আগে মেকআপ তুলে ফেলুন-  ঘুমাতে যাবার আগে ত্বকের যত্ন খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু আপনি জানেন কি এটার থেকে গুরুত্বপূর্ণ কি? যত ক্লান্তই থাকুন না কেন, মেকআপ না উঠিয়ে ঘুমুতে না যাওয়ার জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞ থাকা। নতুবা ঘুম থেকে উঠে মুখে নতুন ব্রণ দেখতে পারেন। 

৮.নিয়মিত ড্রাই ব্রাশ করুন- যদি আপনি সেলুলাইট নিয়ে প্রায়শই সমস্যায় পড়েন এবং এটি কমাতে চান, তবে সে জায়গা গুলোতে ড্রাই ব্রাশিং শুরু করুন। বডি ব্রাশ নিয়ে যে এলাকায় সবথেকে বেশি সেলুলাইট সেখান থেকে শুরু করুন এবং আস্তে আস্তে হৃদপিণ্ডের দিকে আসতে থাকুন। এটি আপনার রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে। এটা শেষ হবার পরে গোসল করে ফেলুন। গোসলের পর শরীর ময়েশ্চারাইজ করতে ভুলবেন না, লেমনগ্রাস বডি ক্রিম ময়েশ্চারাইজার হলে সেটা আরো ভাল।

 

পহেলা ফালগুন আনন্দঘন এক দিন। স্বভাবতই, সেই উচ্ছ্বাসের সাথে তাল মেলাতে নিজেকে আরো আকর্ষণীয় রূপে দেখতে চাইতেই পারেন। এটার জন্য নিশ্চিত করুন  ত্বকের যত্নের একটি নির্দিষ্ট রুটিনই যেন অনুসরণ করেন। নিজেকে আরো দীপ্তিময় করতে জোর দিন প্রাকৃতিক উপায়ে ত্বকের যত্নে। 

 

সাধারণ প্রশ্নসমূহ-

 

১. ত্বকের যত্নে পদক্ষেপগুলোর সঠিক ক্রম কোনটি?

– মৃদু প্রকৃতির ক্লিনজার দিয়ে শুরু করুন। এরপরে, টোনার ব্যবহার করুন। তৃতীয় ধাপে সেরাম (যদি আপনি ব্যবহার করেন)। তাহলে আপনার ত্বকের দাগের ট্রিটমেন্ট এর দিকে এগোতে পারেন যদি ডাক্তার নির্দেশ করে থাকে। সবশেষে ত্বকের যত্নের রুটিনটি শেষ করুন আপনার ত্বকের ধরন অনুযায়ী ময়েশ্চারাইজার দিয়ে। কিন্তু এরপরে যদি আপনার বাইরে যাবার প্রয়োজন হয়, তবে এরপরে সানস্ক্রিন লাগান।

২.কোন বয়সে ত্বকের যত্নে রুটিন শুরু করা উচিত?

–  কৈশোর থেকেই ত্বকের যত্নে একটি স্বাস্থ্যকর রুটিন মেনে চলা উচিত। এটি ত্বকের বয়স বাড়ার লক্ষণ কমিয়ে দিবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে বয়সের তুলনায় যেন অতিরিক্ত না হয়। তাহলে ত্বকে ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে। ত্বককে রুক্ষ করে এমন পণ্য থেকে দূরে থাকুন এবং শুধুমাত্র বয়স-উপযোগী পণ্য ব্যবহার করুন আপনার নমনীয়, কোমল ত্বকের জন্য।

৩.কিভাবে আমি দীপ্তিময় ত্বক পেতে পারি?

–  প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করুন। এছাড়াও, সপ্তাহে দুই থেকে তিন বার এক্সফোলিয়েট করুন এবং আরো ভাল ফলাফলের জন্য সাথে ফেস মাস্ক ব্যবহার করুন। উদাহরণস্বরূপ, আপনি দুধ এবং মধু; হলুদ,মধু এবং দই মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন।

৪. ত্বকের যত্নে দৈনন্দিন রুটিন কিভাবে মেনে চলব?

আপনার ত্বকের  যত্নের রুটিনটি এমনভাবে অনুসরণ করুন যেন এটি আপনার কাছে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া কখনো মেকআপ না উঠিয়ে ঘুমাতে যাবেন না। 

৫.ত্বকের যত্নে সহজ রুটিন কোনটি? 

মৃদু প্রকৃতির ক্লিনজার ব্যবহার করুন, দিনে দুইবার ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন, সপ্তাহে দুই থেকে তিন বার এক্সফোলিয়েট করুন এবং বাইরে গেলে সবসময় সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।

 

Reference:

https://www.healthline.com/health/beauty-skin-care/how-often-should-you-exfoliate-your-face#for-dry-or-sensitive-skin

https://www.skincancer.org/blog/ask-the-expert-does-a-high-spf-protect-my-skin-better/

https://www.webmd.com/beauty/features/moisturizers#1

https://www.webmd.com/beauty/features/moisturizers#1

https://www.skinstation.co.uk/blog/best-age-start-regular-skim-care-routine

 

POST A COMMENT